স্টেট ইউনিভার্সিটির পেশা পরিকল্পনাবিষয়ক বক্তৃতায় সিএজি

স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ (এসইউবি)-এর উদ্যোগে আয়োজিত ‘শিক্ষিত তরুণের পেশাপরিকল্পনা’ শীর্ষক বক্তৃতামালার আওতায় ‘পেশা হিসেবেি সভিল সার্ভিস’ বিষয়ে আজ (২৮ জানুয়ারি ২০২০) বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশের মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক (সিএজি) মোহাম্মদ মুসলিম চৌধুরী। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্টেট ইউনিভার্সিটি অব বাংলাদেশ- এর উপাচার্য অধ্যাপক এম.শাহজাহান মিনা। অনুষ্ঠানে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এসইউবির প্রো-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ারুল কবির।
মহাহিসাব নিরীক্ষক ও নিয়ন্ত্রক মোহাম্মদ মুুসলিম চৌধুরী তাঁর বক্তৃতায় উল্লেখ করেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের পেশা পরিল্পনা প্রণয়নের ক্ষেত্রে প্রথমেই পটভূমি গত সকল সমস্যা ও বৈরিতাকে সম্ভাবনায় রূপান্তরের চেষ্টা করতে হবে। আর প্রত্যয় ও দৃঢ়তা থাকলে তা করাটা মোটেও অসম্ভব কিছ ুনয় বলে তিনি অভিমত ব্যক্ত করেন। নিজের জীবনের অভিজ্ঞতা তুলে ধরে তিনি বলেন যে, ভাষা, উপস্থাপনা ও কারিগরি নৈপুণ্যসহ বিভিন্ন সফট স্কিল বা বিষয়গত পূর্ণাঙ্গ জ্ঞান কোনোটাই শুধুমাত্র কাঠামো গত পাঠ্য সূচির মধ্য দিয়ে অর্জন করা সম্ভব নয়। এগুলো শিখতে হয় সারা জীবন জুড়ে এবং প্রতিনিয়ত ও প্রাত্যহিক জীবনযাপনের ভেতর দিয়ে। তিনি শিক্ষার্থীদের কে সময় ব্যবহারের ক্ষেত্রে আরো সচেতন ও হিসাব নিকাশসম্পন্ন হবার পরামর্শ দেন।
পেশা হিসেবে সিভিল সার্ভিস কেন মর্যাদাবান পেশা,সে প্রসঙ্গ বিশ্লেষণ করতে যেয়ে তিনি বলেন, এ পেশায় ব্যক্তিগত দক্ষতা, সন্তুষ্টি ও পরিতৃপ্তি অর্জনের বিষয় যেমন থাকে, তেমনি থাকে সমাজ ও জীবনের জন্য অবদান রাখার বিষয়টি ও। সিভিল সার্ভিসে নিজের দায়িত্ব পালন ও অবদান রাখার সুযোগ লাভের বিষয়ে স্মৃতিচারণ করতে যেয়ে তিনিব লেন,মাত্র ৯০ লাখ টাকা ব্যয় করে কয়েক লক্ষ অবসরপ্রাপ্তকর্মকতা-কর্মচারিরমাসিক পেনশনের টাকা এখন কোনোঝক্কি-ঝামেলা ও হয়রানি ছাড়াই যার যার প্রত্যাশিত ব্যাংক হিসাবে চলে যাচ্ছে। উপস্থিত শিক্ষার্থীদের কে আগামীদিনের সিভিল সার্ভেন্ট উল্লেখ করে তাদেরকে এ ধরনের বড় মাপের হিতকর কাজের সাথে যুক্ত হবার আহ্বান জানান। তিনি তাঁর বক্তৃতায় সিভিল সার্ভিসের কাঠামোগত বিন্যাসেরি বভিন্ন পর্যায় নিয়ে ওি বস্তারিত আলোচনা করেন। এ প্রসঙ্গে তিনি সার্ভিসে যোগদান করেও কি ভাবে উচ্চতর শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে নিজেকে আরো দক্ষ ও যোগ্য করে গড়ে তোলাযায়, সে বিষয়টির প্রতি ও আলোক পাত করেন।
স্টেট ইউনিভার্সিটির প্রো-উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃআনোয়ারুল কবির বলেন, এসইউবি তার শিক্ষার্থীদেরকে শুধু শ্রেণিকক্ষেই পাঠ দান করছে না- শ্রেণিকক্ষের বাইরের বাস্তব দক্ষতা দিয়ে ও তাদের কে গড়ে তোলার চেষ্টা করছে, যাতে কর্মক্ষেত্রে যেয়ে তারা সামর্থ ও যোগ্যতার প্রমাণ রাখতে পারে।
বক্তৃতা অনুষ্ঠানেএ সইউবির বিভিন্ন বিভাগের প্রধান, অনুষদ সদস্য ও কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। এসইউবির প্রায় দেড়শ’শিক্ষার্থী এতে অংশ নেন।